Lifestyle - লাইফস্টাইল

অপার্থিব দৃশ্যের সাক্ষী গড়সন বুগিয়াল

Quarry pass

যোশিমঠ থেকে রোপওয়ে কিংবা কেবলকারে আউলি হয়ে গড়সন বুগিয়ালে গেছেন কি?

যেখানে রয়েছে সীমাহীন আকাশ, অসাধারণ নৈসর্গিক শোভা ।

রোপওয়ে থেকে যেদিকেই তাকানো যাবে চোখ জুড়িয়ে যাবে, মন ভরে যাবে। এইসব অপার্থিব দৃশ্যের সাক্ষী একবার গিয়ে চোখ মেলে দেখে আসুন।

শিমঠের লোয়ার টার্মিনালে স্টেশন থেকে আমরা উঠে এসেছি অপার্থিব সৌন্দযে স্বর্ণসিঁড়ি আউলি হয়ে গড়সন বুগিয়ালে। যোশিমঠ থেকে কেবলকার যতই ওপরে উঠছি, ততই ধীরে ধীরে চোখের সামনে উন্মোচিত হয়েছে সুন্দরী প্রকৃতি।

এহেন গড়সন বুগিয়াল প্রথম দর্শনেই পর্যটককে মোহবিষ্ট করে এখানকার অসম্ভব নৈঃশব্দ পরিবেশেকে করে তুলেছে আরো বেশী রোমান্টিক।

একবার এসে পড়লে, গড়সনের প্রেমে না পড়ে পর্যটকদের আর উপায় নেই।

নৈঃশব্দেরও যে আলাদা ভাষা আছে তা এখানে কিছুক্ষণ থাকলেই অনুভূত হয়।

কীভাবে যাবেন

কলকাতা থেকে সরাসরি হরিদ্বার যাওয়ার জন্য রয়েছে দুটি ট্রেন।

আপ দুন এক্সপ্রেস, হাওড়া থেকে প্রতিদিন রাত্রি ৮টা ৪৫ মিনিটে ছেড়ে হরিদ্বার পৌছায় পরের পরের দিন সকাল ৭টা ১০ মিনিটে।

উপাসনা এক্সপ্রেস হাওড়া থেকে বেলা ১টা ১০মিনিটে ছেড়ে (সপ্তাহে মঙ্গল ও শুক্রবার ছাড়ে) পরের পরের দিন সন্ধ্যে ৬টায় পৌছায়।

হরিদ্বার থেকে সড়ক পথে যোশিমঠ পৌছাতে সময় লাগে মোটামুটি ৯ থেকে ১০ ঘন্টা । দুরত্ব প্রায় ২৭০ কিলোমিটার।

যোশিমঠ থেকে ট্রেক করে অথবা গাড়িতে আউলি পৌছানো যায়। যোশিমঠ-আউলি সড়ক পথে দূরত্ব প্রায় ১৬ কিলোমিটার।

হরিদ্বারে কোথায় থাকবেন

হরিদ্বারে রয়েছে অসংখ্য হোটেল, লজ, ধর্মশালা ও কলকাতার বাণিজ্যিক সংস্থার হলিডে হোম। হোটেল আছে বিভিন্ন মানের ও দামের।

মে-জুন ও অক্টোবর মরশুম। তখন হোটেল রেটও বেশী হয়।

হোটেল রেট মোটামুটি ৫০০ টাকা থেকে শুরু। হরিদ্বারে একদিন বিশ্রাম নিয়ে যোশীমঠের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়াই শ্রেয়।

যোশীমঠে কোথায় থাকবেন

যোশিমঠে প্রচুর হোটেল, আশ্রম, গেস্ট হাউস ইত্যাদি থাকলেও আউলি গড়সনে থাকার জায়গা খুবই কম।

থাকার ভালো জায়গা জি এম ভি এন-এর দুটি টুরিস্ট গেস্ট হাউস, ফোন নম্বর (০১৩৮৯) ২২২২২৬। কলকাতা বুকিং- ২৩৭০৮০০৪

গড়সন বুগিয়ালে জি এম ভি এন লিমিটেড বিল্ডিং-এর দ্বিশষ্যা ও চার শষ্যা বিশিষ্ট ঘরের ভাড়া যথাক্রমে ৫০০ টাকা এবং ১০০০ টাকা ।

কলকাতা বুকিং- জি এম ভি এন, মারশাল হাউস, রুম নম্বর- ২২৪, ৩৩/১, এন এস রোড, তৃতীয় তলা, কলকাতা-৭০০০০১, ফোন নন্বর- ৯৮৩১১১০৯৯৯ / ২২৩১৫৫৫৪।

বেড়াবার মরশুম

সবচেয়ে ভালো সময় হল অক্টোবর-মার্চ মাস। তবে ফুলের সমারোহ দেখতে হলে এপ্রিল-মে মাসে।

দেখতে ভুলবেন না

গড়সন থেকে শুরু হওয়া নন্দাদেবী বায়োস্ফিয়ার রিজার্ভ ফরেস্ট থেকে ট্রেনে করে পৌছে যাওয়া যায় ২১ কিলোমিটার দূরের কুঁয়ারি পাস।

সেখানকার সৌন্দর্য দেখার মত। এই কুঁয়ারি পাসকে বলা হয় সৌন্দর্যের খনি।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top