Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

গর্ভাবস্থায় কি খাবেন না জেনে নিন

Bad Food

গর্ভাবস্থায় জীবনশৈলীর দিকে নজর দেওয়া অত্যন্ত জরুরী। শরীর সুস্থ রাখতে রোজের ডায়েট ও জল খাওয়ার দিকে নজর দিন বেশি করে।

এই সময় ডায়েট প্লানে কি রাখবেন আর কি রাখবেন না জেনে নিন।

কাঁচা পেঁপে

গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কাঁচা, পাকা দু রকমের পেঁপেই ক্ষতিকারক। পেঁপেতে ল্যাটেক্স, পেপসিন, প্যপাইনের পরিমাণ বেশী থাকায় সন্তানের ক্ষতি হয়। পেঁপে খেলে গর্ভপাতের আশঙ্কা বেড়ে যায়। তাই গর্ভাবস্থায় এই ফলটির থেকে দূরে থাকুন।

তুলসি পাতা

তুলসী পাতা সর্দি কাশি কমানোর জন্য আদর্শ হলেও গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে এর প্রভাব ভালো না।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা জুস ত্বকের সমস্যা সমাধান করে কিন্তু গর্ভাবস্থায় এটি ক্ষতিকারক। অ্যালোভেরা জুস খেলে গর্ভাবস্থায় মহিলাদের বমি, ডাইরিয়ার মতো উপসর্গ দেখা দেয়।

মেথি দানা

মেথি গর্ভাবস্থায় মা ও সন্তানের শারীরিক ক্ষতিসাধন করে।

আনারস

গর্ভাবস্থায় আনারস থেকে দূরে থাকুন বিশেষত প্রথম তিনমাস। আনারসে ব্রোমেলাইন উৎসেচক থাকে যা গর্ভপাতের আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

কাঁচা ডিম

ডিম খেতে আপত্তি নেই, কিন্তু কাঁচা ডিম যুক্ত খাবার যেমন মেয়োনিজ, ক্রিম ও কাঁচা ডিম থেকে তৈরি ডেজার্ট থেকে দূরে থাকুন। কাঁচা ডিমে স্যালমোনেলা ভাইরাস থাকে যা গর্ভাবস্থায় নানা সমস্যার কারণ সৃষ্টি করতে পারে।

জাঙ্ক ফুড

বাইরের খাবার ও জাঙ্ক ফুড থেকে দূরে থাকুন, এই জাতীয় খাবারে নুনের পরিমাণ বেশী থাকে। নোনতা খাবার শরীরে জল ধারণের ক্ষমতা কমিয়ে দেয় যা গর্ভবতী মহিলাদের শরীর খারাপের আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

কাঁকড়া

কাঁকড়া আপনার যতই প্রিয় খাবার হোক না কেন প্রেগনেন্সির সময় নয়। কাঁকড়াতে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ থাকলেও কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশী থাকে।কোলেস্টেরলের   জরায়ুর আয়তন কমিয়ে আপনার প্রেগনেন্সির সমস্যা বাড়িয়ে দেয়।

লিভার

প্রেগনেন্সির সময় অ্যানিম্যাল লিভার খাবেন না। মাংস থেকে যকৃৎ বাদ দিয়ে খান এটি আপনার সন্তানের জন্য মোটেই সুখকর না।

প্যাকেটজাত খাবার

গর্ভাবস্থায় প্যাকেটজাত খাবার কম খান। ফ্রেশ সবজি, ফল, তরকারী খান। বাসি খাবার থেকেও দূরে থাকুন।

সামুদ্রিক প্রাণী

ঝিনুক, কাঁকড়া, চিংড়ি ও সামুদ্রিক প্রাণীজ খাবার এড়িয়ে চলুন। এই সমস্ত খাবারে ব্যাকটেরিয়া,কৃমি ও পরজীবী থাকে যা গর্ভপাতের আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয়।

ক্যাফাইন

প্রেগনেন্সির সময় চা, কফি কম খান।

গর্ভবতী মহিলাদের অ্যালকোহল ও ধূমপান থেকে দূরে থাকতে হবে। সন্তানের শারীরিক বিকাশের জন্য সাবধানতা অবলম্বন করুন, সুস্থ থাকুন, খুশি থাকুন।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top