Diet - ডায়েট

পায়েস, মিষ্টিতে কিশমিশ খাচ্ছেন, জানেন এর কত গুণ

ড্রাই ফ্রুটস-এর কথা উঠলেই যার নাম সকলের আগে মাথায় আসে তা হল কিশমিশ। পোলাওতে কাজুর জুড়ি কিংবা পায়েসের  স্বাদ বাড়িয়ে তুলতে কিশমিশ এক অবিচ্ছেদ্য উপাদান।  শুধু কি স্বাদ বা সাজানোর জন্য কিশমিশের কদর?  আসুন জেনে নেওয়া যাক আর কী কী গুণ রয়েছে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী এই শুকনো ফলের মধ্যে …….

আঙুর শুকিয়ে তৈরি হয় কিশমিশ। এতে থাকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান, খনিজ, ফাইবার , ভিটামিন ও শর্করা যা শরীর সুস্থ রাখতে, হজম শক্তি ও আয়রনের মাত্রা বাড়াতে এবং হাড় সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

গ্যাস্ট্রিক ও কোষ্ঠকাঠিন্যসহ বিভিন্ন রোগে অনেক উপকারী ভূমিকা রাখে এটি।

ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে:

কিশমিশ প্রাকৃতিক শর্করা সমৃদ্ধ ।

শরীরে বাড়তি ক্যালোরি যোগ করা ছাড়াও এটি খিদে নিয়ন্ত্রণে রাখে।

কিশমিশ খেলে দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা থাকে ও ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে । যদি কারোর ওজন খুব কম হয় এবং  ওজন বৃদ্ধি নিয়ে চিন্তিত থাকেন, তাহলে কিশমিশ খাওয়া ওজন বৃদ্ধির জন্য সহায়ক হবে।

এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্লুকোজ এবং ফ্রুক্টোজ পাওয়া যা শুধু দেহকে শক্তিই যোগায় না,  এতে উপস্থিত উপাদান ওজন বাড়াতেও সাহায্য করে থাকে।

রক্তাল্পতা দূর করতে :

কিশমিশে প্রচুর পরিমাণে আয়রন এবং ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স থাকায় তা রক্তাল্পতা কমিয়ে দিতে পারে।

এতে থাকা কপার রক্তের লোহিত কণার পরিমাণ বাড়ায়।

এছাড়াও কিশমিশে প্রচুর পরিমাণে আয়রন পাওয়া যায়।

প্রতিদিন জলে ভিজিয়ে কিশমিশ খেলে শরীরে রক্তের অভাব দূর হয়।

সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে :

কিশমিশে পলিফেনলিক ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট থাকে যেটি অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসাবে সুপরিচিত।

অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যগুলো প্রদর্শন করায় তা জ্বরের ঝুঁকি কমাতে এবং ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলতে সাহায্য করে।

এজন্য দিনে কয়েকটি কিশমিশ খেলে তা আপনার ঠাণ্ডা এবং অন্যান্য সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পারে।

ত্বকের জন্য উপকারী:

কিশমিশ ত্বককে ভেতর থেকে কোষকে যেকোনো ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।

এর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বকের কোষ, কোলাজেন এবং ইলাস্টিনের ক্ষতি থেকে ফ্রি- র্যাডিকেলগুলোকে বাধা দেয়।

এটি বার্ধক্যের লক্ষণ যেমন  সূক্ষ্ম রেখা ও ত্বকে দাগ দেখা দেওয়ার সমস্যা বিলম্ব করতে সাহায্য করে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করে:

কিশমিশের অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান মুখের স্বাস্থ্য রক্ষায় ও দুর্গন্ধ দূর করে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top