Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

অ্যাজমা বা হাঁপানির মোকাবিলায় ঘরোয়া টোটকা

সিজন চেঞ্জ বা শীতে শ্বাস নেওয়া ঝকমারি হয়ে ওঠে অ্যাজমা রোগীদের।  অ্যাজমা বা হাঁপানি শ্বাসতন্ত্রের অ্যালার্জিজনিত দীর্ঘমেয়াদি রোগ।

বর্ষাকালে বৃষ্টিতে ভিজলে বা আবহাওয়ার তারতম্য ঘটলে অনেক সময় অ্যাজমা বা হাঁপানির প্রকোপ বেড়ে যেতে পারে।

অসহনীয় এ রোগ দেখা দিলে রোগীর শ্বাসনালী  সংকুচিত হয়, ফলে রোগী তীব্র শ্বাসকষ্টে ভুগতে থাকেন।

স্বাভাবিকভাবে নিশ্বাস নিতে কষ্ট হয় বা শ্বাসকষ্ট হয়।

ওষুধের মাধ্যমে অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। তাই ওষুধ খেয়ে রোগের প্রকোপ কমিয়ে রাখতে হয়।

তবে কিছু ঘরোয়া টোটকা ও বিধিনিষেধ থাকে যেগুলি মেনে চললে সারাবছরই অ্যাজমাকে জব্দ রাখা যায়।

আদা : আদা হাঁপানিসহ বিভিন্ন রোগের জন্য একটি সুপরিচিত প্রাকৃতিক চিকিৎসা

গবেষকদের মতে, আদা শ্বাসনালীর প্রদাহ কমাতে এবং শ্বাসনালী সংকোচনরোধে সাহায্য করে। ফলে শ্বাসনালীতে অক্সিজেন প্রবাহ বাধা পায় না।

এক কাপ ফুটন্ত জলের মধ্যে মেথি, আদার রস ও মধু দিয়ে অল্প কিছুক্ষণ জ্বাল দিতে হবে।

সেই রস  দিনে দু’বার খেলে উপকার পাবেন।  এছাড়াও আদা, মধু ও বেদানার রস সমপরিমাণ মিশিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

কফি : কফি হাঁপানি নিয়ন্ত্রণে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। নিয়মিত গরম কফি পান করলে শ্বাসনালী পরিষ্কার হবে।

কিন্তু দিনে তিন কাপের বেশি ব্ল্যাক কফি খাওয়া উচিত না।

যদিও হাঁপানির নিয়মিত চিকিৎসা হিসেবে কফিকে  ব্যবহার করা উচিত নয়।

মধু – অ্যাজমার চিকিৎসায় বহুকাল আগে থেকেই মধুর ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

হাঁপের টান কম করতে মধুতে থাকা প্ৰাকৃতিক উপাদান বেশ ভাল সহায়তা করে থাকে।

তাই দিনে তিনবার একগ্লাস গরম জলে একচামচ মধু মিশিয়ে পান করতে হবে।

কর্পূর-সরিষার তেল : যখনই দেখবেন অ্যাজমা বা হাঁপানির আক্রমণ বেড়ে যাচ্ছে তখনই  একটি বাটির মধ্যে একটু কর্পূর এবং সরিষার তেল নিয়ে গরম করুন।

এরপর আলতো করে বুকে এবং পিঠে ম্যাসাজ করতে হবে। যতক্ষণ না পর্যন্ত উপসর্গ প্রশমিত হয় ততক্ষণ ম্যাসাজ  করতে হবে।

এটি শ্বাসনালীর পথ পরিষ্কার এবং স্বাভাবিক শ্বাস ফিরে পেতে সাহায্য করবে।

রসুন : রসুন হাঁপানি প্রতিরোধে প্রাকৃতিক প্রতিকার হিসেবে কাজ করে।

হাঁপানির একটি বিকল্প চিকিৎসা হিসাবে রসুন ব্যবহার করা যেতে পারে।

তাই অ্যাজমা রোগীদের বেশি করে রসুন খাওয়া উচিত।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top