Lifestyle - লাইফস্টাইল

নিমের মহাগুণ

নিম একটি ঔষধি গাছ, এর কান্ড থেকে শুরু করে পাতা সবকিছুই  ওষধিগুণ সম্পন্ন।

এটি চিরহরিৎ, বহুবর্ষজীবী বৃক্ষ। যার ডাল, পাতা, রস সবই কাজে লাগে। নিম ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ানাশক হিসেবে খুবই কার্যকরী।

আর রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও এর জুড়ি মেলা ভার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন এক-আধটা নয় নিমের ভেষজ গুণের সংখ্যা গুনে শেষ করা যাবে না।

নিমে প্রায় ১৪০ রকমের সক্রিয় উপাদান রয়েছে যেগুলি অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট ও প্রদাহনাশক হিসেবে অত্যন্ত কার্যকরী।

আসুন জেনে নেওয়া যাক নিমের উপকারিতাগুলো

নিম তেলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-ই এবং ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে যা আমাদের ত্বক এবং চুলের জন্য খুবই উপকারী।

ত্বক : বহুদিন ধরে রূপচর্চায় নিমের ব্যবহার হয়ে আসছে। ত্বকের দাগ দূর করতে নিম খুব ভালো কাজ করে।

এছাড়াও এটি ত্বকে ময়শ্চারাইজার হিসেবেও কাজ করে।

ব্রণ দূর করতে নিমপাতা বেটে লাগাতে পারেন। মাথার ত্বকে অনেকেরই চুলকুনি ভাব হয়। নিমপাতার রস মাথায় নিয়মিত লাগালে এই চুলকুনি কমে।

নিয়মিত নিমপাতার সঙ্গে কাঁচা হলুদ পেস্ট করে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা  বৃদ্ধি ও স্কিন টোন ঠিক হয়।

চুল : উজ্জ্বল, সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন চুল পেতে নিমপাতার ব্যবহার বেশ কার্যকর।

চুলের খুসকি দূর করতে শ্যাম্পু করার সময় নিমপাতা সিদ্ধজল  দিয়ে চুল ম্যাসাজ করে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। খুসকি দূর হয়ে যাবে।

সপ্তাহে ১ দিন নিমপাতা ভালো করে বেটে চুলে লাগিয়ে রাখুন। এবার ১ ঘণ্টা পর ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।

দেখবেন চুল পড়া কমার সঙ্গে সঙ্গে চুল নরম ও কোমল হবে।

উকুন নিধনে ও মাথার ত্বকের চুলকুনির সমস্যায় নিমপাতা ফুটিয়ে সেই জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

নারকেল তেলের মধ্যে নিমপাতা ফুটিয়ে ঠান্ডা করে সেই তেল নিয়মিত ব্যবহার করলে উকুনের সমস্যা কমবে।

দাঁতের রোগ : দাঁতের সুস্থতায় নিমের ডাল দিয়ে দাঁতন করার প্রচলন রয়েছে সেই প্রাচীনকাল থেকেই।

এছাড়া নিমের পাতা ও ছালের গুঁড়ো কিংবা নিমের ডাল দিয়ে নিয়মিত দাঁত মাজলে দাঁত হবে মজবুত, রক্ষা পাবেন দাঁতের রোগ থেকেও।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে, দাঁতের ফাঁকে জীবাণু সংক্রমণ রোধ করতে, দাঁতের গোড়া মজবুত করতে ও দাঁত থেকে হওয়া রক্তপাত কমাতে নিমপাতা ও রস  বেশ কার্যকরী।

 

 

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top