Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

টনসিলের ব্যথায় কাতর, এই পাঁচ টোটকায় মিলবে আরাম

টনসিলের ব্যথা সাধারণত শীতকালে বেশি হলেও, প্রচন্ড গরমে বা সিজন চেঞ্জেও বেশ ভোগায় আমাদের।

গরমে সারাদিন এসির  মধ্যে থাকার পর বাইরে বেরোলেই ঘেমে-নেয়ে একসা হতে হয়।

বাড়ি ফিরে ঘাম থেকে মুক্তি পেতে স্নান।  আর ঠান্ডা গরমের ফলেই গলার টনসিলে প্রদাহ,ব্যথা ও জ্বর।

সারাদিন তখন ঢোক গিলতে বা কথা বলতে অসুবিধা হয়, কাশতে কাশতে গলায় ব্যথা বেড়ে যায়।

টনসিলের সমস্যা সাধারণত যে কোনও বয়সেই হয়ে থাকে।

জিভের পিছনে গলার দেওয়ালের দু’পাশে গোলাকার পিণ্ডের মতো যে জিনিসটি দেখা যায়, সেটাই হল টনসিল।

ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে টনসিলের ব্যথা হয়ে থাকে।

সর্দি-কাশির জন্য দায়ী ভাইরাসগুলিই টনসিলের এই সংক্রমণের জন্যেও দায়ী।

সাধারণত চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে অ্যান্টিবায়োটিক খেলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।  যারা চট করে ওষুধ খেতে চান না তাঁদের জন্য রইলো কিছু ঘরোয়া টিপস। 

নুন জল: টনসিলের সমস্যার সব চেয়ে বড় সমাধান নুন জল দিয়ে গার্গল। সামান্য উষ্ণ জলে নুন দিয়ে গার্গল করলে আরাম মিলতে পারে ।

এটি টনসিলে সংক্রমণ রোধ করে ব্যথা কমাতে খুবই কার্যকরী।

শুধু তাই নয়, উষ্ণ নুন জল দিয়ে গার্গল করলে গলায় ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের আশঙ্কাও দূর হয়।

যাঁদের টনসিলের সমস্যা আছে তাঁরা এটি সারাবছরও করতে পারেন।

মধু : গলা ব্যথায় মধু বেশ কাজ দেয়।  গরম জলের মধ্যে মধু মিশিয়ে খেতে পারেন।

এছাড়াও গ্রিন-টিতে মধু মিশিয়ে গরম গরম খেলে গলায় আরাম পাওয়া যাবে।

বেকিং সোডা : বেকিং সোডা টনসিলের জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই করে।

তাই গরম জলে এক চিমটে বেকিং সোডা ফেলে সপ্তাহে ৩ দিন গার্গল করুন।

হলুদ দুধ: এক কাপ গরম দুধে এক চিমটি হলুদ মিশিয়ে নিন। দুধে হলুদ মিশিয়ে সামান্য গরম করে খেলেও উপকার পাওয়া যায়।

হলুদ অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি, অ্যান্টি-বায়োটিক এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ একটি উপাদান।

যা গলা ব্যথা দূর করে টনসিলের সংক্রমণ দূর করতে সাহায্য করে থাকে।

আদা: টনসিলের সমস্যায় ভুগলে চায়ের সঙ্গে অল্প আদা কুচি মিশিয়ে আদা চা খেলে টনসিলের ব্যথা থেকে অনেকটাই মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

আদাতে থাকে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান। ফলে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ অনেকটাই কম হয় ও ধীরে ধীরে টনসিলের ব্যথা থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়।

মেথি : গরম জলে মেথি ফেলে ফুটিয়ে নিন তারপর তারমধ্যে চা পাতা ফেলে দিন।

কিছুক্ষণ চাপা দিয়ে রেখে ছেঁকে খেয়ে নিন। এটি পান করলে গলার সমস্যার সমাধান হয়।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top