Mental health মনের যত্ন

মেডিটেশনে কমান মানসিক চাপ

প্রতিটি মানুষই জীবনে সুস্থতা, সাফল্য এবং সুখ চায়। মেডিটেশন চর্চার মাধ্যমে যে কেউ তা অর্জন করতে পারে। কারণ মেডিটেশন করলেই মন ভালো থাকে। আর মন ভালো থাকলে সেই ছাপ শরীর ও স্বাস্থ্যের ওপর পড়তে বাধ্য।

বিশ্বজুড়ে এখন প্রায় ৫০ কোটি মানুষ নিয়মিত ধ্যান বা মেডিটেশন করেন। গত কয়েক বছর ধরে পৃথিবীজুড়ে কিছু প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের উদ্যোগে ২১ মে বিশ্ব মেডিটেশন দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। বিভিন্ন শ্রেণী-পেশা ও বয়সের মানুষ এতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছেন। উজ্জীবিত হচ্ছেন শক্তি ও উদ্যমে। নতুন গতি অনুভব করছেন স্বাস্থ্য ও মনে।

মেডিটেশন কী?

অত্যাধিক  মানসিক অস্থিরতা বা চাপ থাকলে আমাদের দেহের ভেতর স্বয়ংক্রিয়ভাবে কিছু হরমোন যেমন কর্টিসল ও অ্যাড্রিনালিন নিঃসৃত হয় প্রচুর পরিমাণে। এসব হরমোন নিঃসরণের কারণে শরীরে তাৎক্ষণিক কিছু প্রতিক্রিয়া হয়। যেমন রক্তচাপ বাড়ে, নাড়ির গতি বাড়ে, শ্বাস দ্রুততর হয়, ঘাম হতে থাকে।

মেডিটেশন ও যোগা এর ঠিক উল্টো কাজটি করে।

এতে শরীর ও মনকে শিথিল অবস্থায় নিয়ে নির্দিষ্ট একটি বিষয় বা শব্দের প্রতি মনোযোগ দেওয়ার বা চারদিকের পরিবেশ ও চিন্তা থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলার চেষ্টা করা হয়।

** গবেষণা বলছে, মেডিটেশনে কমে ৬০ শতাংশ মানসিক চাপ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মেডিটেশনের অনুশীলন জাগিয়ে তোলে মানুষের ভেতরের ইতিবাচক সত্ত্বাকে, শুভ শক্তিকে।

**  মেডিটেশন  অনুশীলন করলে মনের রাগ, ক্ষোভ, দুঃখ, হতাশা, দুশ্চিন্তা, স্ট্রেস বা মানসিক চাপ দুর হয়। নেতিবাচকতা থেকে ইতিবাচকতায় বদলে যায় দৃষ্টিভঙ্গি।

** মন প্রশান্ত থাকলে, মনে মমতা জাগলে পারিবারিক, পেশাগত, সামাজিক সম্পর্কগুলোও সুন্দর হয়ে ওঠে।

** শুধু নিয়মিত মেডিটেশন চর্চা করেই একজন মানুষ পেতে পারেন প্রশান্তি, সুস্বাস্থ্য ও সাফল্য।

** ধ্যান বা মেডিটেশন হচ্ছে মনের সার্বজনীন ব্যায়াম। যেকোনো বয়সের মানুষ প্রতিদিনই এটি চর্চা করতে পারেন।

** মানসিক চাপমুক্ত থাকা যায় বলে বাড়ে পেশাগত দক্ষতা।

** অশান্তির ভাবনাকে জোর করে সরানোর দরকার নেই। সেই ভাবনা নিজের মনে আসবে, আবার চলেও যাবে। সকালে-বিকেলে ১০ মিনিট মেডিটেশন করতে পারলে একসময় দেখবেন অভ্যাস হয়ে গেছে।

এছাড়া অ্যাড্রিনাল গ্রন্থি কম পরিমাণে কর্টিসল হরমোন নিঃসরণ করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। স্বচ্ছভাবে চিন্তা করার এবং মনোযোগের ক্ষমতা বাড়ে। উদ্বেগ, অনিদ্রা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। রোজ মেডিটেশন করলে ধূমপান ও মাদকাসক্তির মতো খারাপ অভ্যাস ত্যাগ করা সহজ হয়।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top