Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

স্পন্ডিলাইটিস ও স্পন্ডিলোসিস কি এক ?

অসীমবাবু বেশ কয়েকদিন ধরেই ঘাড় ও পিঠের ব্যথায় কাবু ।  অফিসে টানা ঝুঁকে কাজ করতে গিয়ে ঘাড়-মাথা টনটন করছে ।

এমনকি চেয়ার ছেড়ে উঠতে গিয়ে মাথা ঘুরে গিয়ে পড়ে যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল পঞ্চাশোর্ধ অসীম বাবুর ।  সহকর্মীদের কাছে এই সমস্যার কথা বলতেই কেউ তাঁকে বললেন,  এসবই স্পন্ডিলাইটিসের  লক্ষণ ।

আবার কেউ কেউ মতামত দিলো তাঁর স্পন্ডিলোসিস হয়েছে । যন্ত্রনায় কাতর অসীমবাবু বুঝে উঠতে পারছিলেন না আদতে তাঁর কোন সমস্যাটা হয়েছে,

স্পন্ডিলাইটিস না  স্পন্ডিলোসিস ?

চিকিৎসকের দ্বারস্থ হয়ে সবটা বুঝতে পারলেন ।

আমরা যারা বিশেষজ্ঞ নই তাঁরা সাধারণভাবে শিরদাঁড়া ও সংলগ্ন অঞ্চলজুড়ে ব্যথার প্রকোপ শুরু হলে রোগটিকে  স্পন্ডিলাইটিস ও স্পন্ডিলোসিস  এই দুই নামেই ডেকে থাকি ।

কিন্তু জেনে রাখা ভালো পার্থক্য রয়েছে স্পন্ডিলোসিস এবং স্পন্ডিলাইটিসের মধ্যে ।

  তফাত  কোথায় ?

আমাদের শরীরের বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরে অবক্ষয়জনিত পরিবর্তন ঘটে । মেরুদণ্ডও এর ব্যতিক্রম নয় ।

স্পন্ডিলোসিস বলতে সাধারণভাবে সেই মেরুদণ্ডের আর্থ্রাইটিস অথবা ডিজেনারেটিভ ডিস্ক ডিজিজ দ্বারা সৃষ্ট মেরুদন্ডের সাধারণ অবক্ষয়কে বোঝায়।

আর স্পন্ডিলাইটিস হলে স্পন্ডিলোসিস- এর সঙ্গে প্রদাহ বা ইনফ্ল্যামেশন যুক্ত হয়ে যায় ।

একজন ব্যক্তির  স্পন্ডিলোসিস থাকলে স্পন্ডিলাইটিসের লক্ষণ দেখা যেতেই পারে । যেহেতু সমস্যা দু’টিই পরিচিত এবং একে অন্যের সঙ্গে সংযুক্ত, তাই অনেকে দু’টি টার্ম গুলিয়ে ফেলেন ।

দুটো রোগ একে অপরের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত, তাই  দুই রোগের সমাধানের উপায়গুলি এক ধরনের ।

কোনও ব্যক্তির শরীরে স্পন্ডিলোসিস রয়েছে, অথচ রোগীর কোনও উপসর্গ নেই, তখন কিন্তু সেটাকে স্পন্ডিলাইটিস বলা যাবে না ।

ইনফ্ল্যামেশন বা প্রদাহ দেখা দিলে  তবেই তাকে স্পন্ডিলাইটিস বলা যাবে ।

কেন হয় ?

মোবাইল, ট্যাবলেট, ল্যাপটপে একটানা দীর্ঘ সময় ধরে মাথা-ঘাড় ঝুঁকিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে সমস্যা ডেকে আনছে বয়সে ছোটরাও ।

যন্ত্রনির্ভর দুনিয়ায় কমে গিয়েছে শারীরিক কসরতও ।

স্পন্ডিলাইটিস অর্থাৎ ইনফ্ল্যামেশনের উপসর্গ সাধারণত ঘাড়, কাঁধ কিংবা কোমরের অস্থিসন্ধি সংলগ্ন জায়গায় বেশি করে দেখা যায় ।

চেয়ারে ভুল পদ্ধতিতে অনেকক্ষণ বসে থাকলে কিংবা ভারী কিছু জিনিস বইতে হলে ঘাড়ে ও মাথায় চাপ পড়ে ।  সেই থেকেও এই সমস্যা দু’টির সূত্রপাত হয় ।

এমনকি ওজন বেশি থাকলে চাপ পড়ে শিরদাঁড়ায় ।

বয়স বাড়াও স্পন্ডিলোসিস একটি কারণ ।

মশলাদার, ঠাণ্ডা এবং বাসি খাবার খেলে স্পন্ডিলাইটিস হতে পারে ।

মহিলাদের মধ্যে অনিয়মিত ঋতুস্রাবও স্পন্ডিলোসিস  হওয়ার একটি কারণ ।

বয়স বাড়ার ফলে হাড় দুর্বল হয়ে পড়ে যা স্পন্ডিলোসিস-এর প্রধান একটি কারণ ।

যন্ত্রণা থেকে মুক্তির উপায়

উচ্চতা অনুযায়ী ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা, নিয়মিত এক্সারসাইজ়, বিশেষ করে স্ট্রেচিং এক্সারসাইজ়ের বিকল্প নেই ।

যারা চেয়ারে বসে কাজ করেন তাঁদের এক ঘণ্টা অন্তর উঠে কিছুক্ষণ হাঁটাচলা করা, হাত পা নাড়া ইত্যাদি করতে হবে

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top