Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

আয়ুর্বেদেই বশে রাখুন রক্তচাপকে

৪০ পেরোলেই কিংবা তার আগে থেকেই বেশিরভাগ মানুষের শরীরে উচ্চ রক্তচাপ বাসা বাঁধতে থাকে । তাই চিকিৎসকরা  উচ্চ রক্তচাপকে একটি নীরব ঘাতক বলে চিহ্নিত করেছেন ।

৯০ শতাংশ রোগীর ক্ষেত্রে উচ্চ রক্তচাপের  নির্দিষ্ট কারণ জানা যায় না ।

এমনকি অনেকের শুরুতে রক্তচাপে তেমন কোনও  উপসর্গ থাকে না ।  তাই প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির রক্তচাপ বছরে অন্তত একবার মাপা উচিত বলে মত  চিকিৎসকদের ।

উত্তেজনা, দুশ্চিন্তা, পরিশ্রম, রাগ, ক্রোধ ও পর্যাপ্ত ঘুমের অভাবে রক্তচাপ বাড়তে পারে ।

দৈনন্দিন জীবনে নানারকম সমস্যার মতো রক্তচাপকে অবহেলা করলে ভবিষ্যতে বড়োসড়ো বিপদ অপেক্ষা করে থাকতে পারে ।  তাই চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে ওষুধ খেতে হবে ।

আয়ুর্বেদে এমন কয়েকটি ভেষজ দ্রব্য রয়েছে যা রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে ।  আসুন জেনে নেওয়া যাক কী কী সেই উপাদান ….

 

তুলসী  তুলসীর গুণাগুণ সম্পর্কে নতুন করে বলার নেই ।  এই তুলসী  উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সহায়ক ।  তুলসীতে ইউজেনল উপাদান রয়েছে যা রক্তসংক্রান্ত সমস্যা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হতে পারে ।

এই ভেষজ ঔষধিটি বিভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সমস্যাগুলি দূর করতে সহায়তা করে । আপনি চা, রস বা অন্য কোনও উপায়ে তুলসী খেতে পারেন ।

এছাড়াও রান্নায় বেসিল বা তুলসীর ব্যবহার কিন্তু বিদেশে খুবই জনপ্রিয় । এটি পাস্তা, স্যুপ ও স্যালাডে ব্যবহৃত হয় ।

 

. বিট সবজি হিসাবে বর্তমানে বিট বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে এর বিশেষ কয়েকটি গুণের জন্য ।

বিটে রয়েছে নানা অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ উপাদান ।  বিট খেলে রক্তচাপ কমে ।

বিটে  থাকা  নাইট্রেট শরীরে ঢুকে নাইট্রিক অ্যাসিডে পরিণত হয় ।

যা শরীরে রক্তসঞ্চালনকে উন্নত করে তোলে ।

 

. রসুন আপনি যদি খালি পেটে রসুনের এক বা দু’টি কোয়া প্রতিদিন খান, তবে এটি আপনার পক্ষে খুব উপকারী ।

এটি উচ্চ রক্তচাপ থেকে শুরু করে হজম পর্যন্ত অন্যান্য অনেক সমস্যা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করতে পারে ।

রসুন নাইট্রিক অক্সাইড সমৃদ্ধ, যা আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে ।

. অশ্বগন্ধা স্ট্রেস থেকেই উচ্চ রক্তচাপের উৎপত্তি ।  অশ্বগন্ধা স্ট্রেস দূর করতে দারুণ কাজ করে । অশ্বগন্ধায় রয়েছে অ্যাডাপ্টোজেন নামক উপাদান । যা মনকে শান্ত করে, উদ্বেগ এবং চাপ কমায় ।

শুধু তাই নয়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও সাহায্য করে অশ্বগন্ধা ।

. ত্রিফলা আয়ুর্বেদে ত্রিফলাকে মহৌষধ বলে গণ্য করা হয় ।

পেট সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যার জন্য সকালে খালি পেটে ত্রিফলার জল খেতে বলা হয় ।

পরিপাকতন্ত্রের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে ত্রিফলার অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য উচ্চ রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে ।

. আমলকী  –  ভিটামিন সি-তে ভরপুর এই ফলটির আয়ুর্বেদে বিশেষ গুরুত্ব আছে।

এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট একদিকে যেমন কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে ।

তেমনই এটি রক্তনালীকে প্রশস্ত করে যার ফলে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দেখা দেয় না ।

দিনের যেকোনও সময়ে আমলকী  খাওয়া যেতে পারে ।

তবে ভালো ফল পেতে সকালে ঘুম থেকে উঠে একটা গোটা আমলকী চিবিয়ে খেয়ে নিন ।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top