Diet - ডায়েট

ওজন কমাতে গরমে বেশি শশা খাচ্ছেন, সাবধান হোন এখনই

গরমের ফল বলতেই আমাদের মাথায় আসে শশার কথা ।  স্বাস্থ্যের জন্য শশার ওপর চোখ বুজে নির্ভয়ে ভরসা করেন সকলে ।  ওজন কমাতে হোক বা শরীরের জলশূন্যতা পূরণ করতে শশার জুড়ি মেলা ভার ।

একটি শশায় প্রায় ৯০ শতাংশ জল থাকে ।

১০০ গ্রাম শশাতে জলের পরিমাণ ৯৪.৯ গ্রাম এবং ক্যালোরি ২২ ।

স্বাস্থ্য সচেতন  যারা, তারা তাদের ডায়েটে শশা রাখবেনই ।  কারণ উপকারি সবজি শশা, রান্না ছাড়াও স্যালাড হিসেবে খাওয়া হয়ে থাকে । শশার মধ্যে রয়েছে নানা ভেষজ গুণ ।

ত্বকের যত্নে, পরিপাকতন্ত্র সুস্থ রাখতে, অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে শশার বিকল্প নেই । এছাড়াও ফাইবার ও ফ্লুইডসমৃদ্ধ শশা শরীরে ফাইবার এবং জলের পরিমাণ বাড়ায় ।

যা মুহূর্তেই শরীরকে সতেজ করে তুলতে সাহায্য করে । পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ফাইবার থাকার কারণে শশা উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে থাকে ।

কিন্তু এবার সেই শশা খাওয়ার ক্ষেত্রে রাশ টানতে বলছেন খোদ গবেষকরাই । তাঁরা বলছেন, শশা বেশি পরিমাণে খেলে এবং ঠিক সময়ে না খেলে শরীরে নানা বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে ।

ভাল একটি খাবার শশাও মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে যায় যখন সেটিকে অনিয়ন্ত্রিত পরিমাপে কেউ খাওয়া শুরু করেন ।

অনেকে  মনে করেন শুধু শশা খেয়েই ওজন ঝরিয়ে ফেলবেন ।  শশাকে ওষুধ হিসবে ধরে নিয়ে সারাদিন শশা খেতে থাকেন । যখনই খিদে পায় শশা খেতে শুরু করেন ।

যেহেতু  শশা কম ক্যালোরিযুক্ত খাবার তাই দীর্ঘদিন ধরে শশা খেলে ওজন কমতে বাধ্য ।

কিন্তু শুধু শশা খেয়ে থাকলে শরীরে অন্যান্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি বেড়ে গিয়ে বিপত্তি দেখা দিতে পারে ।

সেক্ষেত্রে খিদে পেলেই শসা খেলে বদহজম, গ্যাসের সমস্যাসহ পেট ফাঁপা, পেট ব্যাথা, বমি-বমি ভাব ইত্যাদি দেখা দেয় । শরীর আর্দ্র রাখতে শশা খাওয়া যেমন ভালো, তেমনই বেশি শশা খেলে শরীর থেকে জল বেরিয়ে যেতে পারে ।

শশাতে রয়েছে কিউকারবিটিন । শশা বেশি পরিমাণে খেলে শরীরে টক্সিনের মাত্রা বেড়ে যায় ।  শরীরে পর্যাপ্ত পুষ্টির অভাবে শরীর ভীষণ দুর্বল হয়ে যাবে । কাজ করার শক্তি পাবেন না । রক্ত কমে যাওয়ার আশংকা রয়েছে ।

বেশি শশা খেতে থাকলে শরীরে ইউরিনের পরিমাণ বেড়ে যায় ও শরীরের জলের পরিমাণ কমে যায় । সেইসঙ্গে অ্যাসিডিটির সমস্যায় যারা ভুগছেন তারা অতিরিক্ত শশা  খেলে অ্যাসিডিটি বাড়তে পারে । খালি পেটে ভুলেও শশা খাবেন না ।  এছাড়া অ্যাসিডিটি না থাকলেও শশা বেশি পরিমাণে খেলে পেট ফুলে বদহজম বা গ্যাস হতে পারে ।

এছাড়াও যাঁদের সাইনোসাইটিস রোগ আছে তাঁদের শশা  এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হয় । এর পেছনের কারণ হলো শশার স্বাদ ঠান্ডা । এমন পরিস্থিতিতে সাইনোসাইটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিরা এটি খেলে, সমস্যা বাড়তে পারে ।

যদিও গর্ভবতী মহিলাদের শশা খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়, ফলে ঘন ঘন প্রস্রাব হতে পারে । সেটা শরীরকে জলশূন্য করে দিতে পারে ।  তাই শশা ভালো লাগলেও খান পরিমিত মাপে ।

 

 

 

 

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top