Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

নাক বুজে গিয়ে জল ঝরছে ? সর্দি নয়, হতে পারে Nasal Polyp

সামান্য ঠান্ডা লেগে সর্দিতে নাক বুজে যাওয়ার সমস্যায় অনেকেই ভুগে থাকেন । কিন্তু  ঠান্ডা না লাগলেও সারাবছরই নাক বুজে যাওয়ার সমস্যায় ভুগে থাকেন অনেক মানুষই । এর কারণ পলিপ বা মাংস পিন্ড ।  নাকের দু’টি গহ্বরে মাংসপিণ্ড বাড়তে বাড়তে এমন অবস্থায় পৌঁছায় যে নাক বন্ধ হয়ে নিঃশ্বাস আটকে যাওয়ার উপক্রম হয় অনেকেরই ।  নাকের পলিপ বা Nasal Polyp জন্য এই অবস্থার সৃষ্টি হয়ে থাকে । আমাদের দেহের যেসব  নালি বা গ্রন্থিগুলি টিউব আকারের হয়, সেগুলির মধ্যেই সাধারণত পলিপের জন্ম হয় ।

নাকের পলিপ (Nasal Polyp) কাকে বলে ?

নাকের পলিপ হলো দীর্ঘ মেয়াদি অ্যালার্জি । নাকে যদি অ্যালার্জি হয় বা সংক্রমণ দীর্ঘদিন ধরে হতে থাকে, তাহলে নাকের মিউকাস মেমব্রেন বা ঝিল্লির অংশে জল জমে যায় । জল জমে জমে সেগুলি আঙ্গুর ফলের মতো ফুলে যায় । এগুলো ফুলে নাকের ভেতরে চলে আসে । একে বলা হয় নাকের পলিপ বা ন্যাজাল পলিপ । দীর্ঘদিন ধরে সর্দি, কাশি বা অ্যালার্জির কারণে বিনা চিকিৎসায় থাকলে পলিপ হতে পারে ।

সাধারণত দু’ধরণের পলিপ দেখা যায় । একটি হল ইথময়েডাল পলিপ ।

আরেকটি হল, অ্যানথ্রোকরনাল পলিপ ।

নাকের দুই পাশে দু’টি সাইনাস আছে । ইথময়েডাল সাইনাসে দেখা যায়, নাকের ওপর থেকে উঠে পলিপগুলো নিচের দিকে আসে এবং তাদের দুই পাশে অনেকগুলো গুচ্ছের আকারে এগুলি বাড়তে থাকে ।

আর অ্যানথ্রোকরনাল যেটা, ম্যাকসিলারি সাইনাস থেকে নাকে ডান বা বাম পাশে উঠে নাকের পেছনে চলে যায় । এটা একদিকে হয় এবং একটাই হয় । এর ফলে পুরো নাক বন্ধ হয়ে যায় । সাধারণত বয়স্ক লোকদের এই রোগটি বেশি হয় ।

রোগের লক্ষণ

নাক বন্ধ থাকবে । দীর্ঘমেয়াদি নাক দিয়ে জল পড়তে পারে । নাকে অ্যালার্জি থাকবে বা নাকে সংক্রমণ থাকবে । ক্রমান্বয়ে নাক বন্ধ থাকবে । একদিকে অথবা দুই দিকের নাক বন্ধ হয়ে যাবে । মাথা ব্যথা করবে । এই ধরণের উপসর্গ দীর্ঘমেয়াদে চলতে পারে । নাকের ভিতরে এটি দেখা যায় ।  পলিপটা হবে সাদা, আঙ্গুর ফলের মতো । এটা কিছু দিয়ে স্পর্শ করলে কোনও অনুভূতি থাকে না ।  যেকোনও পলিপের একটি কাণ্ড বা গোড়া থাকে । সেটা দেখলে বোঝা যায়, এর উৎস কোথায় ।

অনেক চিকিৎসকের মতে, পলিপ থাকা মানেই তা কেটে বাদ দিতে হবে, এমন নয় । যদি দেখা যায় শ্বাস নিতে প্রচন্ড সমস্যা হচ্ছে, নাক পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে তখন ওই মাংসপিন্ড কেটে বাদ দিতে হতে পারে ।   খুব বেশি সমস্যা তৈরি করলে চিকিৎসকের সঙ্গে দ্রুত যোগাযোগ করতে হবে । কিন্তু সার্জারি যে এই রোগের একমাত্র পথ, তা নয় । বরং আগেভাগে সচেতন হলে সার্জারির দরকারও পড়ে না । নেজ়াল পলিপের চিকিৎসা প্রধানত করা হয় লোকালাইজ়ড স্টেরয়েড দিয়ে । তার সঙ্গে দেওয়া হয় ওরাল স্টেরয়েডও ।

আবার কিছু ENT চিকিৎসকের দাবি, ওষুধের দ্বারা পলিপ নির্মূল করা সম্ভব নয় ।  ওষুধ দিয়ে অ্যালার্জি দূর করা সম্ভব হবে । সংক্রমণের চিকিৎসা হবে । তবে পলিপ যদি হয়ে যায় এটিকে বের করার জন্য অস্ত্রোপচারের সাহায্য নিতেই হবে ।  ফাংশনাল এন্ডোস্কোপিক সাইনাস সার্জারির মাধ্যমে সহজেই পলিপ কেটে বাদ দেওয়া হয় ।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top