Diet - ডায়েট

কিডনি ভাল রাখার উপায়

আমাদের শরীরের দু’টি কিডনি (kidney), যেগুলি দেহে জলের ভারসাম্য রক্ষা করে এবং শরীরে উৎপন্ন বিভিন্ন টক্সিন বা দূষিত পদার্থ ছেঁকে ফেলে । শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ এই কিডনিকে আমাদের শরীরের ওয়াশরুম বলা যেতে পারে ।

তাই সুস্থ থাকার জন্য কিডনির সুস্থতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ । আর কিডনির স্বাস্থ্য ভাল রাখতে হলে মাথায় রেখে চলতে হবে কয়েকটি বিষয় । শরীরের বাইরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলোর যেভাবে আমরা যত্ন নিয়ে থাকি তার থেকে অনেক সহজ উপায়ে কিডনির যত্ন নেওয়া সম্ভব ।

শুধু রক্ত থেকে বর্জ্য পদার্থ সরিয়ে ফেলার কাজই নয় বরং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা, হাড়ের স্বাস্থ্য ভাল রাখা, শরীরে হিমোগ্লোবিনের সঠিক মাত্রা বজায় রাখা ও শরীরের ইলেক্ট্রোলাইট বজায় রাখার কাজ করে কিডনি ।

সাম্প্রতিক সমীক্ষায় প্রকাশিত হয়েছে যে, শরীরে ভিটামিন ডি-র ঘাটতি থাকলে কিডনির অসুখে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা ক্রমশ বাড়তে থাকে ৷ এমনকি একেবারে সাম্প্রতিক সমীক্ষা জানাচ্ছে যে, দূষিত বায়ু কিডনির স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও অত্যন্ত ক্ষতি ডেকে আনতে পারে ।

কিডনিকে স্বাস্থ্যবান রাখার প্রথম শর্তই হল পর্যাপ্ত জল খাওয়া ও প্রস্রাব চেপে না রাখা । দৈনিক ২-৩ লিটার জল খেলে কিডনির কার্যকারিতা স্বাভাবিক থাকে ।কিডনির স্বাস্থ্য ভাল রাখতে যতদূর সম্ভব  চিনি ও বেশি মাত্রায় সোডিয়ামযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।  চেষ্টা করুন সোডিয়ামযুক্ত খাবার কম খাওয়ার । এতে শুধু কিডনি নয় শরীরও ভাল থাকবে ।

প্রসেসড বা প্যাকেটজাত খাবার বাদ দিন খাবারের তালিকা থেকে । এতে ন্যাচারাল ফ্যাট, প্রোটিন ও ফাইবার কার্ব কম থাকে, উল্টে নুন ও চিনি দেওয়া থাকে অনেক বেশিমাত্রায় । বেশি পরিমাণে প্রসেসড বা প্যাকেটজাত খাবার খাওয়ার ফলে  শরীরে ইনফ্লেমেশন বা প্রদাহ তৈরি হয় আর প্রোটিনের ক্রস লিঙ্কিং শুরু হয় ।

এদিকে এনজাইমের অভাবে প্রোটিনের এই ক্রস লিঙ্কিংয়ের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকে কিডনি । যাঁদের  কিডনির সমস্যা আছে তাঁদের জাঙ্ক ফুড থেকে দূরে থাকাই ভাল ।

কম চর্বিযুক্ত দুগ্ধজাত পণ্য এবং ফল, শাকসবজি বেশি খাওয়া উচিত । প্রোটিন খাওয়ার বিষয়ে সচেতন থাকুন । অত্যাধিক প্রোটিন রক্তে বর্জ্য তৈরি করতে পারে ।

কী কী খেলে কিডনি সুস্থ রাখা সম্ভব:

ফল ফলের গুণ নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই । কিডনির সমস্যায় যারা ভুগছেন তাঁরা লাল আঙুর খেতে পারেন । এতে প্রচুর মাত্রায় ফ্ল্যাভনয়েড  থাকে ।  ভিটামিন-সি ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট-এ ভরপুর লাল আঙুর । সারাবছরই মোটামুটি আপেল পাওয়া যায় ।  কিডনির অসুখে যারা ভুগছেন তাঁরা প্রতিদিন একটা করে আপেল খান ।  এর উপকারী উপাদান শরীরকে সুস্থ রাখে এবং কিডনিকেও ভাল রাখতে সাহায্য করে । এছাড়াও নিয়মিত খেতে পারেন কালো জাম । জামে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট কিডনির জন্য উপকারী । এতে সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস থাকে, যা কিডনি ভালো রাখে ।

সবজি কিডনি সুস্থ রাখতে তাজা শাকসবজির বিকল্প নেই । পালং শাক, রসুন, পেঁয়াজ, ক্যাপসিকাম সবজিগুলো রোজের খাবারের তালিকায় বরাদ্দ করতে পারেন । সবুজ সবজিতে হরেক ভিটামিন, মিনারেলস, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফলিক অ্যাসিড ও ফাইবারে ঠাসা থাকে । কিডনিকে রক্ষা করার জন্য বেশি করে শাক ও সবজি খেতে হবে ।

.   ধনে ধনের বীজ কিডনির কার্যকারিতা বাড়ায় । এটি শরীর থেকে টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে । মূত্রনালীর সংক্রমণের চিকিৎসার ক্ষেত্রেও কার্যকরী ধনে বীজ ।

. মাছ কিডনির অসুখে যাঁরা ভোগেন তাঁদের প্রোটিন খাওয়ার দিকটাও মাথায় রাখতে হবে। অত্যাধিক প্রোটিন কিডনির ক্ষতি করে । তাই প্রোটিনের চাহিদা মেটাতে মাংসের চেয়ে মাছকে বেছে নেওয়াই শ্রেয় । মাছে রয়েছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ।  এই উপাদান কিডনি সুস্থ রাখতে সহায়তা করে ।

সামান্যতম উপসর্গ দেখা গেলেই নিয়মিত কিডনির যাবতীয় পরীক্ষা করান । অ্যালকোহল, ওষুধ ইত্যাদির ক্ষেত্রেও ছাঁকনির কাজ করে কিডনি । তাই প্রয়োজনের বেশি ওষুধ খাওয়া চলবে না । ওষুধ সবসময়ে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে খেতে হবে । প্রাকৃতিক উপায়ে সুস্থ থাকার চেষ্টা করুন ।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top