Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

ঋতুস্রাবের সময় ব্যথা ! কমবে কীভাবে ?

ঋতুস্রাব  বা পিরিয়ডস-এর সঙ্গে যেমন আমরা পরিচিত। তেমনই পরিচিত পিরিয়ডসের ব্যথার সঙ্গেও । পিরিয়ডস শুরু হওয়ার আগে থেকেই কারও তলপেট, কোমরে ব্যথা হতে শুরু করে । পিরিয়ডস শুরু হওয়ার পরও এক-দু’দিন কারও মারাত্মক ব্যথা হয় ।  কেউ কেউ ব্যথা কমাতে পেইনকিলার খান ।

এই ব্যথা কি স্বাভাবিক ? ওষুধ খাওয়া কি উচিত ? তা নিয়ে আলোচনা করব আমরা ।

ঋতুস্রাব কেন হয় ?

মেয়েদের একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর ঋতুস্রাব হয় আমরা জানি। কিন্তু অনেকেই জানি না এটা ঠিক কেন হয় । শরীরে তার কী প্রভাব পড়ে ।

প্রজননের উদ্দেশ্যে নারীর ডিম্বাশয়ে ডিম তৈরি হয় । তারপর তা ফ্যালোপিয়ন টিউব দিয়ে জরায়ুতে চলে আসে । ৩-৪ দিন সেখানেই নিষিক্ত হতে না পেরে নষ্ট হয়ে যায় । এই নষ্ট হয়ে যাওয়া ডিম, ভগ্ন ঝিল্লি, সঙ্গের শ্লেষ্মা ও এর রক্তবাহ থেকে উৎপাদিত রক্তপাত সব মিশে যায় । সেই তরল ও অর্ধ-তঞ্চিত মিশ্রণ কয়েক দিন ধরে লাগাতার যোনিপথে নির্গত হয় । একে ঋতুস্রাব বলে ।

‘ডিসমেনোরিয়া’ কী?

চিকিৎসকরা বলছেন, ঋতুস্রাব সময়কালীন যন্ত্রণাকে ‘ডিসমেনোরিয়া’ (Dysmenorrhea) বলে । এটি দু’ধরনের হতে পারে ।  ঋতুস্রাবের প্রথমে তলপেটে বেশি ব্যথা হয় একে ।

‘প্রাইমারি ডিসমেনোরিয়া’ (Primary Dysmenorrhea) বলে । কমবয়সি, অবিবাহিতদের ক্ষেত্রেই এটা বেশি দেখা যায় । অন্যদিকে, তলপেটে সংক্রমণ, ফাইব্রয়েড, পলিপ বা এন্ডোমেট্রিয়োসিসের কারণে ব্যথা হলে তাকে ‘সেকেন্ডারি ডিসমেনোরিয়া’ (Secondary  Dysmenorrhea) বলে ।

এক্ষেত্রে ঋতুস্রাব শুরুর ২-৩ দিন আগে থেকে তলপেটে, পায়ে যন্ত্রণা শুরু হয় । রক্তপাত কমতে থাকলে আস্তে আস্তে ব্যথা কমে যায় । সাধারণত সন্তান জন্মানোর পরে এই সমস্যা কমে যায় । ব্যথা না কমলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া দরকার ।

তবে, PCOD, এন্ডোমেট্রিয়োসিস বা অন্য কোনও সমস্যা না থাকলেও ঋতুস্রাবের সময় তলপেটে ব্যথা বা ক্র্যাম্প হয় ।

সেক্ষেত্রে আরাম পেতে যা করবেন

গরম সেঁক হিটিং প্যাড বা হট ব্যাগে গরম জল ভরে তলপেটে, কোমরে, থাইতে ক্রমাগত সেঁক দিন । দেখবেন ব্যথা অনেকটাই কমে এসেছে ।

নারকেল বা তিল তেলের মালিশ তলপেটে তেল ঈষদুষ্ণ গরম করে ম্যাসাজ করলেও আরাম পাবেন । এই সময় বডি ম্যাসাজও করাতে পারেন । পায়ের পাতায় ম্যাসাজের সময় গোটা শরীরের নার্ভে প্রভাব পড়ে । শরীর রিল্যাক্সড লাগে ।

হার্বালটিএই সময় মৌরি, দারচিনি, গোলমরিচ, আদা ফুটিয়ে মধু দিয়ে হার্বাল-টি খেতে পারেন, আরাম লাগবে ।

এক্সারসাইজ ও যোগাঅনেকেই মনে করেন পিরিয়ডসের সময় ব্যায়াম অনুচিত । এটা ভুল ধারণা । যে ব্যায়াম করতে কষ্ট হচ্ছেনা তেমন কিছু ব্যায়াম ও প্রাণায়াম এইসময় করলে মাংসপেশিতে ক্র্যাম্প ধরলে বা ব্যথা হলে তা কমতে পারে। নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে ।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top