Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

বমি বমি ভাব (Nausea)দূর করতে ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক উপাদানে

বাইরে বেরিয়ে ট্রেনে-বাসে চড়লেই গা বমি (nausea), অস্বস্তি ভাব ।  প্রতি ১০ জনের মধ্যে ২ জনের অন্তত এই সমস্যা রয়েছে ।  পাহাড়ে বেড়াতে যাওয়ার পথে গা-বমি বা বমির আতঙ্কে কাঁটা হয়ে থাকতে হয় অনেকসময় । অনেকের আবার  গাড়ি, বাস, ট্রেনে চলন্ত অবস্থায় ও নাগরদোলায় উঠলেই পেটে  পাক দিয়ে ওঠে ।

এগুলির জন্য ডাক্তারি প্রেসক্রিপশন মেনে ওষুধ খেলে এই বমিভাব কেটে যায় ।  কিন্তু অনেকসময় রাস্তাঘাটে সঙ্গে ওষুধ না থাকলে সমস্যা বাড়তে পারে । অনিয়মিত বা অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাসের কারণে অনেকের বমি বমি ভাব হয় ।

বমি বন্ধ করা ওষুধ খেয়েও অনেক সময় কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যায় না । তাই হাতের কাছে ওষুধ না থাকলে বিকল্প হিসেবে বেছে নিতে পারেন এই ঘরোয়া উপায়গুলি ।  প্রাকৃতিক পুষ্টি সমৃদ্ধ উপাদানগুলিও বমি ভাবের অস্বস্তি কাটাতে বেশ উপকারী ।

. লবঙ্গ   একটা ছোট কৌটোয় কয়েকটা লবঙ্গ নিয়ে ব্যাগে রেখে দিন ।  যখনই বমি ভাব দেখবেন তখনি মুখে একটি লবঙ্গ রেখে দিন । ধীরে ধীরে চিবোতে থাকুন, দেখবেন আপনার মুখ থেকে বমিভাব চলে গিয়েছে । লবঙ্গের ঝাঁঝালো রস যেমন বমিভাব দূর করবে তেমনি গলার ভেতরটাও পরিষ্কার করে দেবে ।

. ডাবের জল এমনিতেই ডাবের জলের গুণের শেষ নেই, এটি অত্যন্ত পুষ্টিকরও বটে । এর অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে । এক কাপ ডাবের জলে ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে প্রতি পনের মিনিটে এক চুমুক করে পান করুন । এতে বমি বমি ভাব থেকে রেহাই মিলবে ।

. আদা কুচি বমি ভাব দূর করতে সবচেয়ে কার্যকরী প্রাকৃতিক ওষুধ আদা । আদা কুচি কুচি করে কেটে মুখে নিয়ে রাখতে পারেন । এতে করে আপনার বমি ভাবটি দূর হয়ে যাবে ।

মৌরি মৌরি মুখের তাজা ভাব ফিরিয়ে আনতে দারুণ কাজ দেয় । এতে রয়েছে এমন পুষ্টি উপাদান যা শরীরের উপকার করে । মৌরি চিবানো বা মৌরি চা পান করলে তা বমি নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করতে পারে ।

. জোয়ান কাঁচা জোয়ান চিবিয়ে খেলে অম্বলের সমস্যা, বুকে জ্বালা কম হয় ।  একইসঙ্গে জোয়ান মুখে রেখে কিছুক্ষণ পর চিবিয়ে জল খেলে গা বমির অস্বস্তি দুর হয়ে যায় ।

. এলাচ এলাচ বমি বমি ভাব মোকাবিলায় সাহায্য করে । এলাচের বীজ চিবালে এটি  বমির অস্বস্তি ভাব দূর করতে সাহায্য করে । আরেকটি উপায় হল মধুর সঙ্গে এলাচ মিশিয়ে খাওয়া । এছাড়াও এলাচের মিষ্টি সুগন্ধ মুখের ভিতর তরতাজা করে তুলবে ।

. পুদিনা সবুজ তাজা পুদিনার স্বাদ টাটকা এবং শীতল, যা পেটকে শান্ত করতে সাহায্য করে । তাই বমির ভাব এলে পুদিনা পাতা চিবিয়ে খেলে ভাল কাজ হয় ।  আর পুদিনার গন্ধ মুখের ভেতর তাজা ভাব আনতে সাহায্য করে ।

উপরের কারণগুলো ছাড়াও অনেকরকম শারীরিক এবং মানসিক কারণ মস্তিষ্কের স্নায়ুকে উত্তেজিত করে গা বমি ভাবের উদ্রেক করে । বারবার এই লক্ষণ প্রকাশ পেলে তা ফেলে না রেখে অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করা জরুরি । কেবল শিশু কিংবা বয়স্করাই নয় কমবয়সিদেরও এমন হলে সাবধান ।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top