Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ‘মাস্ট’ সিরাম

ক্লিনজিং, টোনিং এন্ড ময়শ্চারাইজিং। ত্বক ভাল রাখতে এই তিনটি বিষয়ের কথা অনেকেই জানেন। কিন্তু ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে, জেল্লা ধরে রাখতে, বলিরেখা কমিয়ে ত্বক টানটান করে তুলতে সিরামের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে তা অনেকেই হয়তো জানেন না।

ফেস সিরাম কী?

এটি একধরনের তরল জাতীয় পদার্থ, যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। সিরাম ত্বকের গভীরে গিয়ে ত্বককে আদ্র করে, পুষ্টি জোগায়। ক্লিনজিং ও টোনিং-এর পর সিরাম ব্যবহার করতে হয়। তারপর ময়শ্চারাইজার। অনেকর প্রশ্ন থাকে সিরাম বা ময়শ্চারাইজার কোনটা লাগানো দরকার? আসলে ময়শ্চারাইজার ত্বকের ওপরে কাজ করে। ত্বক সিরামকে যতটা শুষে নিতে পারে, ময়শ্চারাইজারকে অতটাও পারে না। ফলে, ত্বকের খুব গভীরে ময়শ্চারাইজার যেতে পারে না। প্রতিদিন ব্যবহার করা করলে ত্বক থাকবে বলিরেখামুক্ত, স্বাস্থ্যজ্জ্বল। মেকআপ করার আগেও এটা ব্যবহার করতে পারেন।

 সিরামের উপকারিতা

ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানকে ত্বকের গভীরে সহজেই পৌঁছে দিতে ব্যবহার করা হয় সিরাম। সরাসরি ত্বকে কাজ করে বলে সিরাম ব্যবহারের ফল হয় দারুন। বিশেষত, দাগছোপ, বলিরেখা, কোঁচকানোভাব বা শুষ্কতা ইত্যাদির মোকাবিলা করে সিরাম।

তাই, ত্বক পরিষ্কার করার পর ও ময়েশ্চারাইজ়ার লাগানোর আগে সিরাম ব্যবহার করা উচিত। সিরাম লাগিয়ে হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন। তাহলে, ত্বক তাড়াতাড়ি শুষে নেবে সিরাম। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে তবেই অন্য প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন।  দিনে এক থেকে দু’বার ব্যবহার করা যায়  সিরাম।

ভিটামিন ই-সহ বিভিন্ন ধরনের এসেনসিয়াল অয়েল সমৃদ্ধ সিরাম বাজারে পাওয়া যায়। ত্বকের ধরন ও সমস্যা অনুযায়ী ইচ্ছেমতো সিরাম তা থেকে বেছে নিতেই পারেন। তবে চাইলে বাড়িতেও তৈরি করে নিতে পারেন সিরাম।

সিরাম তৈরির পদ্ধতি-

একটি পাত্রে অ্যালোভেরা জেল, গোলাপ জল ও ভিটামিন-ই ক্যাপসুল ভালভাবে মিশিয়ে নিন। কোনও শিশিতে সিরাম রাখতে পারেন।

ব্যবহারের পদ্ধতি: দিনে দু’বার এটা লাগাতে পারেন। তবে ভালো ভাবে মুখ ধোওয়ার পরেই ত্বকে সিরাম লাগাবেন।

অ্যালোভেরা, গোলাপ জল ও ভিটামিন ই-এর মিশ্রণ ত্বককে আরও উজ্জ্বল করে তুলবে। কালো বা লাল ছোপ কমাতেও সিরামটি উপযোগী। গোলাপ জল ব্রণর মতো ত্বকের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

 কালো ছোপযুক্ত শুষ্ক ত্বকের জন্য সিরাম

একটি পাত্রে ২ চামচ মধু ও ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। ত্বক পরিষ্কার করে এটি ব্যবহার করুন। হাল্কা হাতে ম্যাসাজের পর কিছুক্ষণ রেখে ভাল করে ধুয়ে নিন।

জৌলুসহীন ত্বকের জন্য

এক চামচ নারকেল তেল ও হাফ চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

ত্বকের প্রয়োজন অনুযায়ী সিরাম তৈরি করে কাচের শিশিতে রেখে দিন। ড্রপারে করে ব্যবহার করুন।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top