Diet - ডায়েট

কয়েকটি মাত্র জিনিস, নিয়ন্ত্রণে থাকবে কোলেস্টেরল

প্রতিদিনের স্ট্রেস? ওজন বাড়ছে চড়চড়িয়ে? বাড়ছে কোলেস্টেরল?

তাহলে এই বেলা সাবধান হোন।কারণ, বাড়তি কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দিতে পারে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি।

প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক কোলেস্টেরল আসলে কী?

কোলেস্টেরল আসলে এক ধরনের মেদ। যা কোষে আবরণ তৈরি করে, বাইরের আঘাত থেকে রক্ষা করে। পাশাপাশি নানা ধরনের জৈবিক কাজেও কোলেস্টেরলের ভূমিকা আছে। এটা দু’ধরনের। HDL বা গুড কোলেস্টেরল । LDL বা ব্যাড কোলেস্টেরল।

সাধারণত দেখা যায় অতিরিক্ত তেল, মশলাদার খাবার বেশি খাওয়া, অতিরিক্ত ওজন, স্ট্রেস ও অনেক সময় বংশগত কারণে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায় । তাই সেবিষয়ে নজর দেওয়া দরকার। কারণ, LDL জমে ধমনী সরু হয়ে গেলে রক্তপ্রবাহে সমস্যার সৃষ্টি হয়। যার জেরে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা থাকে।

1. হাঁটা এক্সারসাইজ

নিয়মিত হাঁটাহাঁটি, জগিং আর একটু ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ শুধু ব্যাড কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতেই  সাহায্য করে না, শরীর সামগ্রিকভাবে ভালো রাখে। তাছাড়া ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখাও খুব জরুরি। সেকারণে, প্রতিদিন অন্তত ২০ মিনিট হাঁটুন।

2. খাওয়াদাওয়া

খুব তেল মশলাদার খাওয়া এড়িয়ে কম তেলে বাড়ির রান্না খান। জাঙ্ক ফুড যতটা পারেন বন্ধ করুন।

আরও কিছু খাবার আছে যা কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ রাখতে সাহায্য করে।

3. গ্রিনটি

দিনে দু’কাপ চিনি ছাড়া গ্রিন-টি, হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। শরীরে মেটাবলিক রেট বাড়ায়। পাশাপাশি গুড কোলেস্টেরল তৈরিতে সাহায্য করে।

4. রসুন, দারচিনি

খাবারে নিয়মিত রসুন ও দারচিনির ব্যবহার কিন্তু কোলেস্টেরল আয়ত্তে রাখতে পারে। প্রতিদিন খালি পেটে এককোয়া রসুন খেলে ভালো ফল পাবেন। সকালে ঘুম থেকে উঠে দারচিনি জলে ফুটিয়ে খেতে পারেন।

5. জিরে

প্রতিদিনের খাবারে আমরা জিরের ব্যবহার করেই থাকি। এই জিরে কিন্তু কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি পেট ভাল রাখতেও সহায়ক। প্রতিদিন সকালে জলে জিরে, দারচিনি ফুটিয়ে সেই জলটা পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খেলে ওজন কমার পাশাপাশি কোলেস্টেরল, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

6. আমলকী

ভিটামিন সি-তে ভরপুর এই ফলটির আয়ুর্বেদে বিশেষ গুরুত্ব আছে। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। এই ফল কাঁচা বা শুকিয়ে নিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

7. আদা

আদা ছাড়া রান্না সাধারণত ভাবাই যায় না। আদার মধ্যে থাকা নানা উপকারী উপাদান কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখে।

8. মাছ

মাছ এক্ষেত্রে খুবই কার্যকর। বিশেষত ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ যেমন  স্যামন, ম্যাকারেল সম্ভব না হলে পমফ্রেট জাতীয় মাছ রাখুন খাদ্য তালিকায়।

9. সবজি ফল

লেবু জাতীয় ফল ও বিভিন্ন সবজি রাখুন রোজের খাদ্য তালিকায়। এতে ভাল থাকবে হার্ট।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top