Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

শরীরের ব্যথা উপশমে পেইন ম্যানেজমেন্ট

Back Pain

ব্যথা কমানোর নতুন প্রয়াস পেইন ম্যানেজমেন্ট। এই পদ্ধতিতে এখন কলকাতাতেও চিকিৎসা হচ্ছে, এমনকি গর্ভযন্ত্রণা রোধেও এখন পেইন ম্যানেজমেন্টের ভূমিকা অপরিসীম।

 

ব্যথা কি কি কারণে হয়?

শরীরের কোনও স্থানে আঘাত পেলে, মহিলাদের ক্ষেত্রে মেনোপজের পর, হাড় ভঙ্গুরজনিত ব্যথা হয়।

আজকাল কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করতে করতে অনেকেই কোমরের ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন এটা কি ধরনের অসুখ?

হ্যাঁ, এটা আজকাল খুব দেখা যাচ্ছে। একে বলা হয় মায়োফেসিয়াল পেইন সিনড্রোম। কোমরে অথবা পায়ের পেশিতে প্রচণ্ড ব্যথা হয়। এই চিকিৎসায় আমরা ট্রিগার পয়েন্ট ইনজেকশন দিয়ে থাকি এবং কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করার সময় বসার ভঙ্গি এবং চোখের সীমা যেন সোজাসুজি থাকে সেই উপদেশ দিয়ে থাকি।

শরীরের যে কোনও ব্যথা কি একেবারে সারিয়ে তোলা সম্ভব?

ব্যথার তো অনেক কারণ থাকে। কি ধরনের ব্যথা হচ্ছে তার ওপর নির্ভর করছে ব্যথা সম্পূর্ণরূপে নির্মূল হবে কি না।

পেইন ম্যানেজমেন্ট বিষয়টা কী?

এটি চিকিৎসা শাস্ত্রেরই একটি শাখা । সম্প্রতি ভারতবর্ষের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বল্পমেয়াদি কিছু কোর্স চালু হয়েছে। এককথায় বলতে গেলে রোগীর ব্যথার চিকিৎসাই হল পেইন ম্যানেজমেন্ট।

পেইন বিশেষজ্ঞরা সাধারণত কিভাবে চিকিৎসা করেন?

একজন রোগী যখন শরীরে কোথাও কোনও ব্যথা নিয়ে আসেন, তখন আমরা দেখে নিই যে, ব্যথার কারণটা কি। সেটা চিহ্নিত করার পরেই ব্যথার উপশমের দিকে এগোই। এর পর সাধারণত তিনভাবে চিকিৎসা করা হয়।

কোমরে বা পায়ে ব্যথার মূল কারণ হল স্লিপড ডিস্ক (slipped disc) । পেইন ম্যানেজমেন্টের চিকিৎসায় আধুনিক পদ্ধতিতে রোগীকে সকালে ভর্তি করে নেওয়া হয়। প্রথমে উন্নত ধরনের সিরাম ব্যবহার করে জায়গাটাকে দেখে নেওয়া হয়। এরপর সূচ ঢুকিয়ে স্লিপ ডিস্কের অংশ থেকে বেরিয়ে আসা জেলিকে বাইরে বের করে ফেলা হয়।

যেমন ক্যান্সারের ব্যথার ক্ষেত্রে আমরা ক্যান্সারের যন্ত্রণা উপশম করি। অঙ্কোলজিস্ট যখন ক্যান্সারের চিকিৎসা করেন, পাশাপাশি ব্যথা বিশেষজ্ঞরা চিকিৎসা করে যন্ত্রণাকে কমিয়ে দেন। লেবার পেইন-এর ক্ষেত্রেও গাইনিকলজিস্ট যখন সন্তান প্রসব করাচ্ছেন, অপর দিকে ব্যথা বিশেষজ্ঞরা ব্যথা কমিয়ে দিচ্ছেন। অর্থাৎ দুটো চিকিৎসাই পাশাপাশি সমান্তরালভাবে চলতে থাকে।

নিউরোপ্যাথিক পেইন বিষয়টির ক্ষেত্রেও পেইন ম্যানেজমেন্টের আধুনিক চিকিৎসা খুব ভালোভাবে কাজ করছে। যদি কারও হাত অথবা পা বাদ চলে যায়, সে যন্ত্রণায় অপরিসীম কষ্ট পায়। এমনকি অনেক সময় মনে করে তার হাত ও পা অক্ষুন্ন আছে। অর্থাৎ পা বা হাত বাদ যাওয়াটা তারা মনে মনে মেনে নিতে পারে না। এটা সাধারণত হয় যে কারণে সেটা হল আমাদের হাত বা পা-এর যন্ত্রণা অনুভূতিগুলো মস্তিষ্কে পৌছে স্মায়ু বা নার্ভ জানান দেয়। সেই চিকিৎসাই আধুনিক পদ্ধতিতে ব্যথা বিশেষজ্ঞরা করে থাকে। কারণ চিহ্নিত না করে শুধুমাত্র ব্যথা সারিয়ে দেওয়া কিন্তু পেইন ম্যানেজমেন্টের লক্ষ্য নয়।

ঘাড়ে, কোমরে, হাঁটুতে ব্যথা হলে যে বেল্ট, নিক্যাপ বা কলার বেল্ট পরা হয়, এগুলো কতটা কার্যকর?

কার্যকরী তো নিশ্চয়ই, তবে এগুলো পরার ক্ষেত্রে কতকগুলি নির্দেশেকা আছে, সেগুলো মেনে এগুলো ব্যবহার করতে হবে। তবে চিকিৎসকের পরামর্শমতো সাময়িক সময়ের জন্য এগুলো ব্যবহার করাই ভালো।

ব্যথা না হওয়ার উপায় কী?

সকাল বিকেল অন্তত ১০ মিনিট করে হাঁটুন। সামান্য যোগ ব্যায়াম করুন। শরীরের ওজন কমানো, কারণ ওজন বাড়লে হাড়ের সংযোগস্থলে চাপ পড়লে ব্যথা বাড়ে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top