Physical Health - শরীর স্বাস্থ্য

স্ট্রেচ মার্কস- অহেতুক চিন্তিত হবেন না

স্ট্রেচ মার্কস

অতিরিক্ত স্ট্রেচ মার্কস-এর জন্য লজ্জা পাচ্ছেন? অস্বস্থিবোধ করছেন? নিজের পছন্দের আউটফিটগুলো কি শুধু ওয়ার্ডরোব সাজিয়ে রাখতে হচ্ছে? আর চিন্তার কোনও কারণ নেই। এর থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য কিছু টিপ্‌স দিলেন বিশিষ্ট ত্বক বিশেষজ্ঞ।

স্ট্রেচ মার্কস কি?

মানুষের শরীর অতিরিক্ত পরিমাণে মেদবহুল হলেও চামড়া প্রয়োজনের তুলনায় বেশি স্ট্রেচ করে, যার ফলবশত চামড়া ফেটে গিয়ে এক ধরনের দাগের জন্ম দেয়, যাকে আমরা স্ট্রেচ মার্কস বলে থাকি। এই ধরণের দাগ আবার অনেকক্ষেত্রে অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে রোগা হয়ে গেলেও দেখা দেয়, আর এক্ষেত্রে চামড়া চুপসে যাওয়ার দাগ হয়ে থাকে।

দেহের কোন স্থানে হয়?

এই স্ট্রেচ মার্কস সাধারণত বয়ঃসন্ধিকালে কাঁধে, হাতে, থাই এবং তলপেটে দেখা যায়, তবে এই স্ট্রেচ মার্কস বেশি দেখা যায় প্রেগনেন্সির পরবর্তী পর্যায়ে। অর্থাৎ ডেলিভারি হয়ে যাওয়ার পর প্রায় সারা জীবন মায়েদের এই ধরনের দাগ নিয়ে জীবন কাটাতে হয়।

কি করা উচিত?

  • প্রেগনেন্সির সময় যখন থেকে পেটের আকৃতি বদলাতে থাকবে, তখন থেকেই ময়শ্চারাইজার ক্রিম দিয়ে লম্বালম্বিভাবে মালিশ করা উচিত;
  • এছাড়াও যাদের বয়ঃসন্ধির সময় এই ধরনের দাগ হয়ে থাকে, তাদেরও সেই স্থানে ময়শ্চারাইজার দিয়ে মালিশ করা প্রয়োজন;
  • কেমিক্যাল পিলিং দেওয়া উচিত;
  • ডার্মাব্রেশান করা যেতে পারে, এতে স্ট্রেচ মার্কস কমে আসার সম্ভাবনা বেশি থাকে;
  • রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ও কালার্স ডাই লেজার একসাথে ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়;
  • ফ্রাকশনাল লেজার রিসারফেশিং-এর সাহায্যে ছোট ছোট ছিদ্র অর্থাৎ ত্বকের ছিদ্রগুলির মধ্য দিয়ে লেজার রশ্মি পাঠিয়ে চামড়া হিল করে এই স্ট্রেচ মার্কস-এর হাত থেকে অনেকক্ষেত্রে রক্ষা পাওয়া যায়;
  • রেটিনয়েড বা রেটিনল যুক্ত মলম এই স্ট্রেচ মার্কস-এর ক্ষেত্রে কিন্তু ফলপ্রসূ।

জরুরি কিছু টিপস

  • স্ট্রেচ মার্কস কিন্তু এমনই একটা জিনিস, যেটা শরীরের কোনও ক্ষতি করে না, ফলে যদি একান্তই প্রয়োজন না হয়, তাহলে অযথা এর চিকিৎসা করার প্রয়োজন নেই;
  • যদি স্ট্রেচ মার্কস নিয়ে বেশি ভাবেন, তাহলে নিজেরাই হীনমন্যতায় ভূগবেন, তাই ডোন্টকেয়ার মনোভাব রাখুন;
  • গোপনস্থানে যদি স্ট্রেচ মার্কস হয়, তাহলে অযথা মাথা ঘামাবেন না;
  • যদি একান্তই এর সংখ্যা অনেক বৃদ্ধি পায় এবং স্বচ্ছন্দে জামাকাপড় না পরতে পারেন, কেবলমাত্র তখনই এর চিকিৎসা প্রয়োজন, তার আগে পর্য্ত কিন্তু নয়;
  • প্রথমেই কিন্তু লেজার ট্রিটমেন্ট-এ না গিয়ে বাড়িতে তেল বা ময়শ্চারাইজার মালিশ করে দেখতে পারেন।
  • যদি লেজার ট্রিটমেন্টের প্রয়োজন হয়, তাহলে কিন্তু কখনওই পার্লার-এ গিয়ে তা করাবেন না, অবশ্যই ত্বকের বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করুন।
  • সামান্য দাগ নিয়ে কিন্ত নিজেকে কুৎসিত ভাবার কোনও কারণ নেই, তাই এইসব ছোটখাটো ব্যাপারে অযথা মাথা না ঘামিয়ে, নিজের মতো বাঁচুন।
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top