Lifestyle - লাইফস্টাইল

রোজ ব্রাশ করলে মুক্তি মিলবে হার্টের অসুখ থেকে, নিউমোনিয়া থেকে

brush

রোজ ব্রাশ করলে দাঁত ভালো থাকে, মাড়ির দোষ এড়ানো যায়- ইত্যাদি কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি। সেই ছোটবেলা থেকেই আমাদের কানের সামনে বেজেছে এই ভাঙা রেকর্ড। তবে বর্তমান গবেষণা আবার ব্রাশ করার অন্য উপকারও আমাদের সামনে আনছে। এই গবেষণা বলছে, ফুসফুসের সমস্যা সহ হার্টের রোগ থেকে সুরক্ষা দিতেও পারে রোজ দাঁত মাজার অভ্যাস।

কোন কোন অসুখের আশঙ্কা কমে?
ইউরোপিয়ান সোসাইটি অব কার্ডিওলজি এক গবেষণা বলছে, রোজ দাঁত মাজলে কমে আর্টিয়াল ফিব্রিলেশনের ঝুঁকি। ফলে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমে। এই গবেষণা অনুযায়ী, আমাদের মুখ হল বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া সহ অন্যান্য জীবাণুর শরীরে ঢোকার অন্যতম রাস্তা। এই জীবাণু বিভিন্ন প্রাণঘাতী অসুখ তৈরি করতে পারে। এবার আমরা যখন ঠিকমতো মুখ পরিষ্কার করি না, তখন এই জীবাণুরা পেয়ে বসে। জীবাণু রক্তে মেশে এবং তৈরি করে প্রদাহ। এই প্রদাহ থেকেই বাড়ে আর্টিয়াল ফিব্রিলেশন, হার্ট অ্যাটাক, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন সহ বিভিন্ন সমস্যার আশঙ্কা।
বিশেষজ্ঞদের মতে, আমাদের মুখ শরীরের নানান অসুখ বাধাতে সক্ষম। এরমধ্যে অবশ্যই উল্লেখযোগ্য হল এন্ডোকার্ডিয়াটিস রোগটি। মুখ থেকে প্রবেশ করা ব্যাকটেরিয়া হার্টে চলে আসে। তারপর হার্টের চেম্বারের ভিতরের স্তরে দেখা দেয় ইনফেকশন। সেই থেকে প্রাণ যায় যায় অবস্থা।

এছাড়া দাঁত না মাজলে হতে পারে পেরিডন্টিক্স অসুখটি। আবার এই পেরিওডন্টিক্স অসুখটির সঙ্গে হার্ট ডিজিজ, রক্তনালী বন্ধ হয়ে যাওয়া, স্ট্রোক ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়া গর্ভাবস্থায় পেরিওডন্টিক্সের সমস্যা দেখা দিলে ভূমিষ্ট বাচ্চার ওজন পর্যন্ত কমতে পারে। তাই প্রথম থেকেই সাবধান থাকুন। এছাড়া কিছু ব্যাকটেরিয়া মুখ থেকে প্রবেশ করে ফুসফুসে পৌঁছে যেতে পারে। হতে পারে নিউমোনিয়া সহ অন্যান্য ফুসফুসের অসুখ।

মুখের যত্ন নেবেন কীভাবে?
মুখের যত্ন নিতে এই পদ্ধতিগুলি মেনে চলুন-

  • নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন।
  • ভালো টুথপেস্ট ব্যবহার করতে হবে।
  • দিনে অন্তুত দুবার ব্রাশ করুন।
  • শুধু দাঁত নয়, জিভ ও মাড়ি পরিষ্কার করুন।
  • ব্রাশ করার পর মাউথওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।
  • ভালো খাবার খান।
  • গার্গল করুন নিয়মিত।
  • চিনি কম খান। কারণ চিনি দাঁত ও মুখের স্বাস্থ্য খারাপ করতে পারে।
  • প্রতি তিন থেকে চার মাস অন্তর নিজের ব্রাশ বদল করুন।
  • ধূমপান, গুটখা ইত্যাদি দাঁতের একেবারে বারোটা বাজিয়ে দেয়। এই ধরনের অভ্যাস ছাড়ুন।
  • ডেন্টাল চেকআপ করাবেন। কোনও সমস্যা চেপে রাখবেন না। প্রয়োজনে করাতে হবে ক্লিনিং।
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top