Lifestyle - লাইফস্টাইল

রূপচর্চা থেকে শুরু করে রুপোর গয়না পরিষ্কার, কলার খোসাতেই বাজিমাত

banana

কলার গুণাগুণের কথা তো সকলেই জানেন। তবে কলার খোসা কী কোনও কাজে লাগে? কলা খাওয়ার পর তার খোসা নিশ্চয়ই ডাস্টবিনে ফেলে দেন। কিন্তু এবার থেকে এই অভ্যাস পাল্টান। কলার মতো কলার খোসাও খুবই উপকারী। বাড়িতে বিভিন্ন কাজে কলার খোসা ব্যবহার করা যায়। কলার খোসাতে মিনারেল এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে, যা ত্বকের পরিচর্যা থেকে শুরু করে ঘরোয়া বেশকিছু টুকিটাকি কাজেও ব্যবহার করা যায়। চলুন জেনে নেওয়া যাক কলার খোসার কিছু ব্যবহার।

১) দাঁতের হলুদভাব দূর করতে কলার খোসা কাজে লাগে। এক্ষেত্রে কলার খোসার সাদা অংশ দিয়ে ভালো করে দাঁত মেজে নিন। এরপর ঠাণ্ডা জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে সহজেই দাঁতের হলদেভাব দূর হয়ে যাবে।

২) কলার খোসার সঙ্গে ডিমের কুসুম দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এবারে সেই মিশ্রণ মুখে মাখুন। ১০ মিনিট পর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহার করলে মুখের বলিরেখা কমবে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে।

৩) অনেকদিন ধরে রুপোর গয়না পড়ে থাকলে তাতে কালো ছোপ ছোপ দাগ পড়ে যায়। এক্ষেত্রে কলার খোসা দিয়ে তরল পেস্ট বানিয়ে তা রুপোর গয়না পরিষ্কারে ব্যবহার করুন। এতে খুব সহজেই গয়নার কালো দাগ উঠে যাবে।

৪) বাড়িতে বাগান রয়েছে? গাছে সার-এর বদলে কলার খোসা ব্যবহার করুন। কলার খোসা থেকে মিথেন গ্যাস তৈরি হয়। এই গ্যাস গাছের বৃদ্ধির জন্য খুবই উপকারী। তাই এবার থেকে গাছের গোঁড়ায় কলার খোসা কুচি কুচি করে কেটে ছড়িয়ে দিন। এতে গাছ দ্রুত বেড়ে উঠবে।

৫) ত্বকের কোনও অংশে ‘ঘা’ বা ‘চুলকানি’ হলে কলার খোসা ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে কলার খোসা জলে সেদ্ধ করে সেই জল ত্বকের ‘ঘা’ বা ‘চুলকানির’ অংশে ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

৬) কলার খোসা ব্রণ দূর করে বেশ কার্যকর। রাতে কলার খোসা ভালো করে ঘোষে মুখে মেখে নিন। সকালে উষ্ণ গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহার করলে ব্রণ-এর সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

৭) কালো জুতোর দাগ তুলতেও কলার খোসা কাজে লাগে। অনেক সময় কালো জুতোতে এমন দাগ লাগে যা সহজে উঠতে চায় না। সেই সময় কলার খোসার সাদা অংশ জুতোর দাগের স্থানে ঘোষে নিন। কিছুক্ষণ পর সুতির কাপড় দিয়ে মুছে নিন। কাজ করবে ম্যাজিকের মতো।

৮) অনেক সময় শরীরের কোথাও ব্যথা লাগলে ওই অংশে কালো দাগ হয়ে যায়। ব্যথা সেরে গেলেও, কালো সহজে মিটতে চায় না। এক্ষেত্রে কলার খোসা দাগের স্থানে কিছুক্ষণ পেচিয়ে রাখুন। ২ থেকে ৩ দিন ব্যবহার করলে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top