Lifestyle - লাইফস্টাইল

চোখ যত্ন নিন, সাবধান আই মেকআপ কম ব্যবহার করুন

eye

প্রত্যেক মানুষ সৌন্দর্য উপলব্ধি করতে পারে তার দুটি চোখ দিয়ে। চোখ যা একটা মানুষকে আরও সুন্দর করে তোলে। চোখের যত্ন নেওয়া আমাদের অন্যতম দায়িত্ব।

কিছু টিপস রইল, চোখের যত্ন নেওয়ার জন্য-

প্রত্যেকদিন সকালে উঠে ভালো করে ঠান্ডা জলে চোখ ধুতে হবে;
চোখের পাতায় বেশি সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন না;
কখনও চোখের কোণ থেকে কাজল পরা শুরু করবেন না;
গরমের মধ্যে যত কম সম্ভব মেকাপ ব্যবহার করুন;
রোদ্দুরে বেরোনোর আগে মনে করে সানগ্লাস সঙ্গে নিয়ে নিন;
মাঝে মাঝে কাজের ফাঁকে চোখে জল দিন। বিশেষত রোদ্দুর থেকে ছাওয়াতে যাওয়ার পরে;
বারবার চোখের পাতা ফেলুন। একটানা তাকিয়ে থাকবেন না;
কম্পিউটারের সামনে অনেকক্ষন বসে কাজ করতে হলে ঠিকঠাক চশমা ব্যবহার করুন এবং চক্ষু বিশেজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে আই-ড্রপ ব্যবহার করুন।
চোখ ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিয়ে, আঙুলে করে একফোঁটা নারকেল তেল নিয়ে আলতো করে দুই চোখে মাসাজ করুন।
ফুটপাথ থেকে কেনা সানগ্লাস ব্যবহার করবেন না। ডার্ক সার্কলের সমস্যা থাকলে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী আন্ডার আই ক্রিম ব্যবহার করুন।

বিভিন্ন ধরণের ওষুধ এবং নামীদামী কসমেটিক্স ব্যবহার যতটা কম করা যায় ততটাই ভালো। কারন অনেকসময় এইসব প্রসাধনী ব্যবহার করার ফলে চোখে চুলকানী, এলার্জি, চোখ লাল হয়ে সমস্যা হতে পার।

চোখ ঠিক রাখতে ঘরোয়া মাস্ক ব্যবহার করুন। যেমন-

কাঁচা আলুর মাস্ক

ফোলা চোখের মতো সমস্যা থাকলে এর চেয়ে ভালো কিছু মাস্ক হয় না। একটি কাঁচা আলু ছাল ছাড়িয়ে, রস বার করে, একটা তুলোতে নিয়ে চোখের চারিপাশে লাগানো যেতে পারে।

টমেটোর মাস্ক

চোখের ডার্ক সার্কল এবং চোখ শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যার জন্য এটি ভীষণ উপকারী একটি মাস্ক। পরিষ্কার একটি টমেটোর পাল্প নিয়ে তার মধ্যে একটু শশার রস মিশিয়ে চোখের চারিপাশে লাগালে ডার্ক সার্কল কমবে এবং এক ঠান্ডা অনুভুতি হবে।

আমন্ড অয়েল মাস্ক

সারাদিন কাজের পরে ক্লান্ত চোখ দুটিকে একটু ঠিকভাবে স্বস্তি দেওয়ার জন্য এর থেকে ভালো কিছু হয় না। এক চামচ আমন্ড অয়েলের সঙ্গে কিছুটা মধু মিশিয়ে একটা হালকা মিশ্রণ বানান। তারপর আঙুলে করে নিয়ে চোখের চারপাশে পাতলা করে লাগান। দশ মিনিট রাখুন। ইচ্ছা হলে তুলোর মধ্যে একটু গোলাপ জল দিয়ে সেই তুলো দিয়ে ভালো করে চোখ মুছে নিন। চোখের পরিশ্রম ও ক্লান্তি দূর করার জন্য এটি খুব ভালো কাজ করে। এই সুন্দর পৃথিবী দেখার জন্য এবং রোজদিন চলার জন্য এটাই অন্যতম পথ। তাই চোখের যত্ন খুব প্রয়োজনীয়।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

To Top